স্টার্ফ রিপোর্টার: আজ সোমবার (২৫ জানুয়ারি) সকাল সোয়া ১১টার দিকে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কেনা তিন কোটি ডোজ করোনা টিকার প্রথম চালানের ৫০ লাখ ডোজ দেশে এসে পৌঁছেছে। এয়ার ইন্ডিয়ার একটি বিশেষ ফ্লাইটে ভারতের পুনে থেকে দিল্লি হয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়। সিরামের ‘এক্সক্লুসিভ ডিস্ট্রিবিউটর’ বেক্সিমকো ফার্মার মাধ্যমে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার এই টিকা দেশে আসলো।

বিমানবন্দরে আগে থেকেই বেক্সিমকোর গাড়ি প্রস্তুত রাখা হয়েছিল। ওই গাড়িতে করে টিকা নিয়ে যাওয়া হবে টঙ্গিতে বেক্সিমকোর ওয়্যার হাউজে। সেখাসেই সংরক্ষণ করা হবে ভ্যাকসিনগুলো।

এ প্রসঙ্গে বেক্সিমকোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান পাপন এমপি বিমানবন্দরে তাৎক্ষণিক এক ব্রিফিংয়ে  জানিয়েছেন, ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে ক্রয়কৃত চুক্তির তিন কোটি ডোজ করোনা টিকার মধ্যে আজ শুধু সরকারের ৫০ লাখ টিকা এসেছে। বাকী দুই কোটি পঞ্চাশ লাখ ডোজ পর্যায়ক্রমে আগামী পাঁচ মাসের মধ্যে (প্রতি মাসে পঞ্চাশ লাখ) দেশে আসবে। আগামী ৪-৫ দিনের মধ্যে বাকি প্রক্রিয়া শেষ করে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী সারাদেশে এই টিকা পৌঁছে দেয়া হবে বেক্সিমকোর নিজস্ব পরিবহনযোগে। এছাড়াও সরকারের চুক্তির বাইরে তাদের আলাদা ১০ লাখ টিকা এখনো আসেনি। সেটি আলাদা আসবে।

ভ্যাকসিনবাহী বেক্সিমকোর মিনি কাভার্ড ভ্যানগুলোকে কঠোর পুলিশ প্রহরায় নিয়ে যাওয়া হবে। বিমানবন্দর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. তাজুল গণমাধ্যমকে বলেন, ‘বিমানবন্দর থানার একটি ও উত্তরা পশ্চিম থানার একটি মোট দু’টি টিম আব্দুল্লাহপুর পর্যন্ত ভ্যাকসিনের মিনি কাভার্ড ভ্যানগুলো স্কোয়াড করে নিয়ে যাবে। এরপর গাজীপুর জেলা পুলিশের টিম আব্দুল্লাহপুর থেকে নিয়ে যাবে।’

গতকাল রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান (পাপন) বলেছিলেন, ভ্যাকসিন দেশে আসার পর ল্যাব টেস্টের পর স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী সময়মতো দেশের ৬৪ জেলায় পৌঁছে দেয়া হবে।

ভারত সরকার যে দামে ভ্যাকসিন পাচ্ছে বাংলাদেশও একই দামে পাচ্ছে উল্লেখ করে পাপন বলেন, চুক্তি অনুযায়ী বাংলাদেশই সবচেয়ে কম দামে ভ্যাকসিন পাচ্ছে।

পাঁচ দিন আগে ভারতের উপহার হিসেবে ২০ লাখ টিকা পেয়েছে বাংলাদেশ। আর সেরাম থেকে ছয় মাসে তিন কোটি টিকা কেনার চুক্তি আছে বেক্সিমকোর। অন্য দিকে কোভ্যাক্স থেকে দেশের ২০ শতাংশ মানুষের জন্য টিকা আসার সম্ভাবনা রয়েছে। এর বাইরে আরো টিকা কেনার পরিকল্পনা আছে সরকারের।