স্টার্ফ রিপোর্টার: বুধবার (০২ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আশুলিয়া ও ধামরাইয়ের সীমান্ত এলাকায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের দ্বিতীয় নয়ার হাট সেতুর (৪ লেন) ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নির্মাণ কাজের শুভ সূচনা করেন।

এসময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিকদের বলেন, দেশের দুঃসময়ে বিএনপি জনগণের করুণ অবস্থা প্রত্যাশা করেছে। তারা চেয়েছে মানুষ না খেয়ে, চিকিৎসা না পেয়ে রাস্তায় পড়ে মরে থাকবে। আল্লাহর অশেষ রহমতে শেখ হাসিনার দূরদর্শিতায় দেশের এমন পরিস্থিতি হয়নি।

করোনা, বন্যা ও আমফানের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগে বিএনপি কোনো ভূমিকা পালন করেনি দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আপনারা তো জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে গণমাধ্যম ও ফেসবুকে কথার বৃষ্টি ঝরিয়েছেন। মহামারি করোনায় গোটা বিশ্ব যখন টালমাটাল, তখন মানুষের জীবন-জীবিকার চাকা সচল রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে দূরদর্শিতা দেখিয়েছেন, তা বিশ্বে প্রশংসিত হচ্ছে। দেশের মানুষের জন্য কোনো ভূমিকা না রেখে আপনারা শুধু বক্তৃতা-বিবৃতি ও উৎসবমিছিল করছেন। এটাই হচ্ছে বিএনপির এখনকার রাজনীতি। আর সরকার যা করছে তার অন্ধ সমালোচনা করে চলছে এই দলটি।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ দল। আর তাই রাতের অন্ধকারে তারা তাদের গঠনতন্ত্রের সাত নম্বর ধারা বাতিল করেছে। এই ধারায় বলা আছে- চিহ্নিত দুর্নীতিবাজরা বিএনপির নেতা হতে পারবে না। জনপ্রতিনিধি হতে পারবে না। কোনো মাদকসেবী বিএনপির নেতা হতে পারবে না।’

বিএনপি সন্ত্রাসের রাজনীতিতে বিশ্বাসী- এটাই তাদের ঐতিহ্য মন্তব্য করে কাদের বলেন, ‘বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে নাকি সরকার অন্যায়ভাবে মামলা দিচ্ছে। একদিকে বিএনপির নেতাকর্মীরা সংঘাত সৃষ্টি করবে, জনগণের সম্পদ-শান্তি নষ্ট করবে বাসে আগুন দেবে, নিজেরা নিজেরা মারামারি করবে। আর তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নেওয়া যাবে না। এ যেন মামাবাড়ির আবদার।’

বিএনপি সরকারের বিরোধিতা করতে গিয়ে জনগণের উন্নয়নের বিরোধিতা করছে। তাইতো জনগণ তাদের কথায় এখন আর সায় দেয় না। তাদের আন্দোলনের ডাক আষাঢ়ের গর্জনের মধ্যেই সমাপ্ত।

নয়ার হাটে ভিডিও কনফারেন্স অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-২০ আসনের সংসদ সদস্য বেনজীর আহমেদ, আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক ফারুক হাসান তুহিন, যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলামসহ প্রমুখ।