নিজস্ব প্রতিনিধি: জাতীয় সংসদের ঢাকা-১৮ এবং সিরাজগঞ্জ-১ শূণ্য আসনে উপ-নির্বাচনে আজ (১২ নভেম্বর) বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে একটানা বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলে। এরপর একে একে আসতে শুরু করে কেন্দ্রের ফলাফল।

ঢাকা-১৮ আসনে মোট ২১৭টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিব হাসান পেয়েছেন ৭৫ হাজার ৮২০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন পেয়েছেন ভোট ৫ হাজার ৩৬৯।

এ ছাড়া গণফ্রন্টের কাজী মো শহিদুল্লাহ পেয়েছেন ১২৬ ভোট, বাংলাদেশ কংগ্রেস’র মো. ওমর ফারুক পেয়েছেন ৯১ ভোট ও প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দল মো. মহিবুল্লাহ বাহার পেয়েছেন ৮৭ ভোট।

রাজধানীর উত্তরা কমিউনিটি সেন্টার থেকে এ ফল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ঢাকা-১৮ আসনের রিটার্নিং কর্মকর্তা জি এম সাহাতাব উদ্দিন বেসরকারিভাবে লিখিত ফল ঘোষণায় উল্লেখ করেছেন। এ আসনে মোট ভোট পেড়েছে ১৪ দশমিক ১৮ শতাংশ। এর মধ্যে বৈধ ভোট পড়েছে ৮১ হাজার ৮১৮টি। কোনো অবৈধ ভোট ছিল না।

অপরদিকে, ইতিমধ্যেই ঢাকা-১৮ ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনের উপ-নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে পুনঃনির্বাচনের দাবি জানিয়েছে বিএনপি। আজ বৃহস্পতিবার বিকালে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী এস এম জাহাঙ্গীরের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির পক্ষ থেকে দলের ভাইস-চেয়ারম্যান আমানউল্লাহ আমান সংবাদ সম্মেলন করে এ দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়কারী আব্দুস সালামসহ বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।

এদিকে সিরাজগঞ্জ-১ আসনে আ:লীগ দলীয় প্রার্থী তানভীর শাকিল জয়ও বিএনপি দলীয় প্রার্থীর থেকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন।

১৭১টি ভোট কেন্দ্রের ভোট গণনা শেষে আওয়ামী লীগ প্রার্থী তানভীর শাকিল জয় ১৮৮৩২৫ বিজয়ী হয়েছেন। অপরদিকে বিএনপি প্রার্থী সেলিম রেজা ভোট পেয়েছেন ৪৮৬। স্বাধীনতা পর থেকে নিরুংকুশভাবে এ আসনে আজ পর্যন্ত নৌকার প্রার্থী বিজয়ী হয়ে আসছে।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) কে এম নুরুল হুদা ভোট দিতে এসে বলেন, সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহন হয়েছে। কোথাও কোন অপ্রীতিকর বা অনিয়ম হয়নি। তিনি বলেন যদিও ভোটার উপস্থিতি কম ছিল।

তিনি আরো বলেন, আমরা কয়েকটি বাস পোরানো খবর জানতে পেরেছি। তবে কে বা কারা এই বাসগুলোতে আগুন দিয়েছে তা জানতে পারিনি। আর কেউ অভিযোগও করেনি। অভিযোগ পেলে আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।

আওয়ামী লীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহারা খাতুন গত ৯ জুলাই মারা যাওয়ায় ঢাকা-১৮ আসন এবং মোহাম্মদ নাসিম ১৩ জুন মারা গেলে সিরাজগঞ্জ-১ আসন শূন্য ঘোষণা করে জাতীয় সংসদ। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতায় গত ২৮ সেপ্টেম্বর এ দুটি আসনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

নির্বাচন উপলক্ষে ১১ নভেম্বর বুধবার মধ্যরাত থেকে আজ বৃহস্পতিবার ভোটের দিন মধ্যরাত পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট নির্বাচনী এলাকায় ট্রাক ও পিকআপ চলাচল বন্ধ থাকবে। মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে শুক্রবার মধ্যরাত পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে নির্বাচন কমিশন। তবে নির্বাচন কমিশনের অনুমতি সাপেক্ষে কিছু যান চলাচল করতে পারবে।

শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন করেছেন। মোতায়েন করা হয়েছিলো ম্যাজিস্ট্রেট ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বাড়তি সদস্য। নির্বাচনী এলাকায় তারা টহল দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, এই দুই আসনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ ছয় রাজনৈতিক দলের ৮ জন প্রার্থী। ঢাকা-১৮ আসনে বিভিন্ন দলের ৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন । তারা হলেন-আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ হাবিব হাসান, বিএনপির এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন, জাতীয় পার্টির মো. নাসির উদ্দিন সরকার, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. ওমর ফারুক, গণফ্রন্টের কাজী মো. শহীদুল্লাহ ও পিডিপির মো. মহিববুল্লা বাহার।

অপরদিকে সিরাজগঞ্জের কাজীপুর, সদরের একাংশ ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত সিরাজগঞ্জ-১ আসন। এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তানভীর শাকিল জয় ও বিএনপির প্রার্থী মো. সেলিম রেজা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নির্বাচনের দিন এই দুই আসনে শুধু নির্বাচন সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। বাকি সব অফিস খোলা থাকবে। তবে ভোটারদের ভোট দেয়ার সুযোগ দিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। এ ছাড়া যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞাও শিথিল করা হয়েছে।

ইসির পক্ষ থেকে জানানো হয়, ঢাকা-১৮ আসনটি ঢাকা উত্তর সিটির ১, ১৭, ৪৩ থেকে ৫৪ নম্বর ওয়ার্ড ও বিমানবন্দর এলাকা নিয়ে গঠিত। মোট ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ২১৭টি ও ভোটকক্ষের সংখ্যা ১ হাজার ৩৫৩টি। মোট ভোটার ৫ লাখ ৭৭ হাজার ১৮৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৯৬ হাজার ১৩৫ জন।

অপরদিকে সিরাজগঞ্জ-১ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৪৫ হাজার ৬০৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৭১ হাজার ৬৪১ জন এবং নারী ভোটার ১ লাখ ৭৩ হাজার ৯৬২ জন। ১৬৮টি কেন্দ্রে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

বিস্তারিত আসছে….