নিজস্ব প্রতিনিধি: আগত শীত মৌসুমে (অক্টোবর-নভেম্বরে) করোনাভাইরাস দ্বিতীয় পর্যায় শুরুর আশঙ্কা থাকলেও দেশে লকডাউন দেয়ার বিষয়টি ভাবছে না সরকার। এর পরিবর্তে মন্ত্রিপরিষদের সব মন্ত্রণালয়কে মহামারি মোকাবেলায় এখই প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কারণ অর্থনীতির চাকা সচল রাখতেই এমন সিদ্ধান্তের কথা জানান সরকার প্রধান।

আজ মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় পর্যায় শুরু হওয়ার আশঙ্কাকে সামনে রেখে কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নের জন্য অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। এসময় অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের সচিবরা সভায় অংশ গ্রহন করেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, করোনার সেকেন্ড ওয়েভ নিয়ে ব্যাপক সচেতনতা চালানো হবে। স্বাস্থ্য নির্দেশিকা মেনে চলতে হবে সবাইকে। বিমানবন্দরে মানুষের ঢোকা ও বের হওয়ার বিষয়ে মনিটরিং বাড়ানো হবে। বিমান বন্দরগুলোতে আগমন ও বহির্গমনে নজরদারির দায়িত্বে থাকবে সেনাবাহিনী।

তিনি আরো বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ঠেকাতে মন্ত্রণালয়গুলোকে নিজস্ব পরিকল্পনা সাতদিনের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে জমা দিতে বলা হয়েছে।
খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বৈঠক শেষে বলেন, মসজিদ, মার্কেটসহ সব জায়গায় মাস্ক বাধ্যতামূলক করতে প্রয়োজনে কঠোরভাবে আইন প্রয়োগ করা হবে।এনফোর্সমেন্ট সাইড, মাঠ প্রশাসন, স্থানীয় সরকার, পুলিশ, সেনাবাহিনী- এটা (নিজেদের কাজ) কীভাবে করবে, সেই ওয়ার্ক প্ল্যান করা হবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে তিনি বলেন, এ ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। প্রত্যেকটা মন্ত্রণালয়ের ওপর দায়িত্ব দেয়া হয়েছে, তারা তাদের অধিক্ষেত্রের অফিসগুলো কীভাবে চালাবে তারা সেই ব্যবস্থা নেবে।