স্টার্ফ রিপোর্টার: আজ (১০ অক্টোবর) শনিবার মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে ৪ ও ৫ নম্বর খুঁটির ওপর পদ্মা সেতুর ৩২তম স্প্যান বসানোর কথা থাকলেও তীব্র স্রোতের কারণে তা বসানো সম্ভব হয়নি। তাই আগামীকাল রোববার সকালে বসানো হবে এই স্প্যানটি। এর ফলে দৃশ্যমান হবে সেতুর ৪৮০০ মিটার। ৩১তম স্প্যান বসানোর ৪ মাস পর এই স্প্যানটি বসবে। এই স্প্যানটি বসানো হলে আর বাকী থাকবে মাত্র ৯ টি স্প্যান।

যদিও আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাসে ৫টি স্প্যান খুঁটির ওপর বসানোর লক্ষ্যমাত্রা ছিল। কিন্তু মাওয়া প্রান্তের মূল পদ্মায় প্রচণ্ড স্রোত থাকায় একটি স্প্যানও বসানো সম্ভব হয়নি।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের দ্বিতল পদ্মা সেতুতে মোট ৪২টি খুঁটি নির্মাণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে মাওয়া প্রান্তে ২১টি ও জাজিরা প্রান্তে ২১টি। আর ৪২টি খুঁটির ওপর বসবে ৪১টি স্প্যান।

এ সম্পর্কে সেতু বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান আ. কাদের বলেন, সকালে মুন্সিগঞ্জের কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে জাজিরার উদ্দেশে স্প্যান নিয়ে ভাসমান ক্রেনটি রওনা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটিতে প্রথম স্প্যানটি বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হয় পদ্মা এই স্বপ্নের সেতু। এরপর একে একে বসানো হয় ৩১ টি স্প্যান। প্রতিটি স্পেনের দৈর্ঘ্য ১৫০ মিটার। ৪২টি পিলারের মধ্যে সবকটি পিলার এরই মধ্যে দৃশ্যমান হয়েছে। দৃষ্টিনন্দন দ্বিতল এই সেতু নির্মিত হলে পাল্টে যাবে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল তথা দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার চিত্র। দেশের অর্থনীতিতে আসবে গতি। বেড়ে যাবে অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি।